Under The Sky :: Mojar School - মজার ইশকুল

Under The Sky :: Mojar School - মজার ইশকুল

মজার ইশকুল ২০১৩ সাল থেকে শুধু পথশিশুদের জীবন মান উন্নয়নে নিবেদিত ভাবে আজ করছে, ঢাকার ৬ টি এবং ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার ২ টি, মোট ৮ টি ইশকুলের ২,০০০ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়েই মূল কার্জক্রম । ঢাকা এবং ভোলার সাথে চট্টগ্রাম, বরিশাল, ময়মনসিংহ, খুলনায় রয়েছে শক্তিশালী স্বেচ্ছাসেবী ইয়ুথ টিম। যারা সারা বছরের নানান সময়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য কাজ করে । বিনামূল্যে খাবার দেয়া, পড়াশোনা করানো, ইশকুল ড্রেস বা ঈদের নতুন পোশাকসহ নানান বিনোদন মূলক সহায়ক কার্জক্রম পরিচালনা করে মজার ইশকুল।

স্বেচ্ছাসেবী কাজ বলতে সাধারণত স্বার্থহীন কাজকে বোঝায় যা একজন ব্যক্তি বা গোষ্ঠী কোনো আর্থিক বা সামাজিক লাভের জন্য করে না, "একজন ব্যক্তি বা দল বা সংস্থার সুবিধার্থে করে"। স্বেচ্ছাসেবী কাজ দক্ষতা বিকাশের জন্যও অতি পরিচিত এবং প্রায়ই সৎকর্ম প্রচার অথবা মানুষের জীবনমান উন্নত করার উদ্দেশ্যে করা হয়। স্বেচ্ছাসেবী কাজ, নিশ্চিতভাবে স্বেচ্ছাসেবক সেই সাথে যে ব্যক্তি বা গোষ্ঠী সেবা গ্রহণ করছে তার জন্য সুবিধাজনক। এটি সম্ভাব্য কর্মসংস্থানের জন্য যোগাযোগ তৈরি করতেও করা হয়। অনেক স্বেচ্ছাসেবক তাদের কাজের ক্ষেত্র গুলোতে বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত, যেমন চিকিৎসাশাস্ত্র, শিক্ষা বা জরুরি উদ্ধারকার্য। উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ-এ এভাবেই সংজ্ঞা দেয়া হয়েছে স্বেচ্ছাসেবার।

আমরা "মজার ইশকুল পরিবার" আরও স্পেসেফিক ভাবে "শুধু মাত্র সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জীবন মান উন্নয়ন ও পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যে দলবদ্ধ ভাবে কাজ করে যাওয়াকে বুঝি"। আপনি যে কোন বয়সের, যে কোন লিঙ্গের হতে পারেন, লক্ষ্য যদি হয় সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের জন্য নিবেদিত ভাবে কাজ করার মজার ইশকুল পরিবার আপনার জন্য আদর্শ জায়গা।

মজার ইশকুলের এই স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী "Youth For Bangladesh" নামে পরিচিত ।

স্বাগতম ।
Apply For Volunteer, It's Your Platform
Image
মজার ইশকুলঃ শাহবাগ
Image
মজার ইশকুলঃ কমলাপুর
Image
মজার ইশকুলঃ সদরঘাট
Image
মজার ইশকুলঃ ধানমণ্ডি
"খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত :: মজার ইশকুল" কিভাবে কাজ করে?

"খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত :: মজার ইশকুল" কিভাবে কাজ করে?


How Under The Sky :: Mojar School - মজার ইশকুল Works?

পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে মজার ইশকুলের মাদার অর্গানাইজেশন অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন নানান উদ্যোগ নেয় এবং তা বাস্তবায়ন করে । আমরা যখন "মজার ইশকুল এবং স্বেচ্ছাসেবী" বলি তার মানে আমরা "খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল গুলোকে বুঝাই" , যা নন-ফরমাল এডুকেশন। কোন শ্রেণী ভাগ নেই। বন্ধুত্ব তৈরি, শিক্ষায় আগ্রহী করা, খাবার নিশ্চিত করা আর দীর্ঘ মেয়াদী পরিবর্তনের লক্ষ্যে আমাদের স্তায়ী ইশকুলে যুক্ত হতে উৎসাহী করি। এটা আমাদের সারা বছরের নিয়মিত কার্যক্রম, সপ্তাহে প্রতি ইশকুলে ১ দিন, ৩ ঘন্টা করে শিশুদের সময় দেয়া ও পড়ানো।

দ্বিতীয়ত, সারা বছর আমরা ৬ টি উৎসব ও নানান ইভেন্ট আয়োজন করে থাকি, এই শিশুদের ইচ্ছে পূরণ ও তাদের সাথে আমাদের আস্থা-বিশ্বাস তৈরি করতে ।

তৃতীয় ও শেষ কাজ হিসেবে স্বেচ্ছাসেবীদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও নিজ নিজ কর্ম ক্ষেত্রে ভালো করতে এবং কর্ম জীবনের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে সরাসরি সহযোগিতা হয় এমন নানান মিটিং, আড্ডা, রিপোর্টিং, ফান্ড - ম্যান - ম্যান ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে বাস্তব অভিজ্ঞতার ব্যবস্থা করা হয়।

মোট কথা, একজন টিম লিডারের যাবতীয় গুণাবলী চর্চা করার দুর্দান্ত সুযোগ পায় একজন নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী।
স্বেচ্ছাসেবী  হিসেবে যুক্ত হবো কিভাবে?

স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত হবো কিভাবে?

স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত হওয়া খুব সহজ, অফিসের ঠিকানায় সরাসরি চলে আসতে পারেন অথবা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারেন । আপনি নিবন্ধন শেষ করলে বাকী সকল দায়িত্ব অফিসের, আপনার সাথে অফিস থেকেই যোগাযোগ করবে।

আবেদন করার আগে আপনাকে আগে নিশ্চিত হতে হবে আপনি কোন ক্যাটাগরির স্বেচ্ছাসেবী হতে আগ্রহী এবং ক্যাটাগরি ভিত্তিক দায়িত্ব কি। দায়িত্ব বুঝে নিয়ে তবেই যুক্ত হন।

১। নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী ( ৪ মাস )                      ২। ইভেন্ট স্বেচ্ছাসেবী ( ৩ দিন )                      ৩। ভার্চুয়াল স্বেচ্ছাসেবী ( ০ দিন )
Apply For Volunteer, It's Your Platform
  • স্বেচ্ছাসেবীদের কাজ কি?
  • কেন স্বেচ্ছাসেবী হবো ?
  • ৪ টি Under The Sky মজার ইশকুল
  • নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী
  • উৎসব / ইভেন্ট স্বেচ্ছাসেবী
  • ভার্চুয়াল স্বেচ্ছাসেবী
  • স্বেচ্ছাসেবীরা কি কিছু শিখতে পারে?
  • স্বেচ্ছাসেবী কাজের ফলাফল কি?
  • "Volunteer Of The Year" কি?
মজার ইশকুলের নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবীদের মূল কাজ ৩ টি, সপ্তাহে ১ দিন নির্দিষ্ট পয়েন্টে ক্লাস নেওয়া যা মাসিক ভিত্তিতে ৪/৫ টি, মাসিক ১ টি টিম আড্ডা ও ১ টি মাসিক মিটিং উপস্থিত থাকা। পরীক্ষার অনুপস্থিতি ছাড়া এই ৩ টি কাজ ১০০% করা আবশ্যক ।
 
ইভেন্টস স্বেচ্ছাসেবীদের কাজ বছরে যে উৎসব গুলো হয়, সেগুলোর দায়িত্ব বুঝে নিতে, নির্দিষ্ট টিমে অন্তর্ভুক্ত হতে অরিয়েন্টেশনে উপস্থিত থাকা, প্রোগ্রামের দিন উপস্থিত থাকা এবং প্রোগ্রাম শেষে ভালো ও সংশোধনী দিন নোট করে রিভিউতে উপস্থিত থাকা । প্রতিটা কাজ রিপোর্টিং টাইম মেনে করা আবশ্যক।
 
আর ভার্চুয়াল ভলান্টিয়ারদের কাজ দূর থেকে আমাদের সহযোগিতা করা, কার্ডের মাধ্যমে ।

পথশিশু সমস্যা বাংলাদেশের একটি অন্যতম সমস্যা, যা আমরা সকলে মিলে চেষ্টা করলে সমাধান করা সম্ভব। স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে মজার ইশকুল- এর সাথে যুক্ত হয়ে আপনিও কাজ করতে পারেন পথশিশু সমস্যা সমাধানে। একই সাথে ব্যক্তিগত দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ রয়েছে মজার ইশকুল- এ। মজার ইশকুল পথশিশুদের জীবনমান উন্নয়নের পাশাপাশি তরুণ সমাজকে স্বেচ্ছাসেবী কাজের মাধ্যমে দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ দিয়ে থাকে। তাই স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে আপনার অংশগ্রহণ হতে পারে দেশ ও সমাজের উন্নয়নের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান।

আরও সহজভাবে বললে স্বেচ্ছায় দেশের একটি সমস্যা সমাধানে কাজ করার জন্য আপনার মজার ইশকুল- এর স্বেচ্ছাসেবী হওয়া প্রয়োজন। মজার ইশকুল- এর প্রতিটি স্বেচ্ছাসেবী কাজ করছে পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ তৈরির জন্য। আপনিও চাইলেই যুক্ত হতে পারেন এই যাত্রায়।

মজার ইশকুলঃ কমলাপুর 
রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশন, টিটিপাড়া, মানিক নগর এর সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কথা চিন্তা করে ২০১৪ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি যাত্রা শুরু করে খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল এর ২য় পয়েন্ট মজার ইশকুলঃ কমলাপুর।কমলাপুর রেলস্টেশনকে উত্তরাঞ্চলের পথশিশুদের ঢাকায় প্রবেশের প্রবেশমুখ বলা যায়। 
সহজলভ্য ট্রেনব্যবস্থা, প্রচুর লোক সমাগম থাকায় খাবার এখানে সহজলভ্য। তাই পথশিশুদের আধিক্যও কমলাপুরে যেকোন স্থানের চেয়ে বেশি।
মজার ইশকুল এর প্রাথমিক পরিকল্পনা হল যদি শুরুতেই ঢাকায় আসা শিশুকে গ্রামে পরিবারের কাছে পাঠানো যায় কিংবা শিক্ষার আলোয় আলোকিত করা যায় তবে রাজধানী ঢাকায় পথশিশুদের সংখ্যা কমবে। এই পরিককল্পনার প্রেক্ষিতেই কমলাপুর রেলস্টেশনের ০৮ নং শহরতলী প্ল্যাটফর্ম এর বাহিরে খোলা জায়গায় মজার ইশকুল কমলাপুর এর নিয়মিত কার্যক্রম শুরু হয়। 
স্বেচ্ছাসেবী পরিচালিত এই ইশকুলের নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয় প্রতি সপ্তাহের বৃ্হস্পতিবার বিকেল ৩.০০- ৬.০০ টা পর্যন্ত। ৮০-১০০ জন শিশুর গড় উপস্থিতির ইশকুলটি পরিচালিত হয় ১০-১৫ জন স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে। স্বেচ্ছাসেবী টিমকে লিড করার জন্য রয়েছে একজন কোওর্ডিনেটর এবং পয়েন্টের যাবতীয় সমস্যা সমাধান এবং কোওর্ডিনেটরকে পরামর্শ প্রদান করার জন্য রয়েছে একজন মেন্টর।
নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রমের পাশাপাশি মজার ইশকুলের ০৬টি উৎসবের সবকটি উৎসবই উদযাপিত হয় মজার ইশকুলঃ কমলাপুর- এ।এসবের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবীদের জন্মদিন, শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রিয় জনদের জন্মদিন উদযাপন, বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপনসহ নানা মাধ্যমে সবসময়ই চেষ্টা থাকে শিশুদের ভালো একটি সময় উপহার দেয়ার।
বর্তমান কোওর্ডিনেটর-
নিয়াজ মাসুদ রাহাত।
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারী- এপ্রিল)
বর্তমান মেন্টর-
মুনিরা মাহজাবিন মিমো।
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)
 

টিম লিডার 

মোঃ শাকিল মৃধা।
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

মজার ইশকুলঃ সদরঘাট

দেশের দক্ষিন অঞ্চলের সাথে রাজধানী ঢাকার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে নৌপথ।নৌপথে লক্ষ্যাধিক মানুষ প্রতিদিন পা রাখে রাজধানীতে। সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালকে ধরা হয় দক্ষিণাঞ্চলের পথশিশুদের প্রবেশমুখ। লঞ্চের মত সহজলভ্য বাহনের কারণে খুব সহজেই সর্বদক্ষিণের চরাঞ্চলের হাজার হাজার শিশু রাজধানীতে পা রাখে  কিছু  করে বেঁচে থাকতে । শিশু বয়সী, শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত এই শিশুরা দ্রুতই নিজেদের পথশিশু হিসেবে আবিষ্কার করে। কুলির কাজ করে, পানি বিক্রি করে জিবীকার সন্ধানে থাকে শিশুরা। মাদকের সহজলভ্যতায় বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে যায় এই সকল পথশিশুরা। 

বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডে সম্পূর্ণভাবে জড়িয়ে পড়ার পূর্বে শিক্ষা ও যথাযথ যত্নের আওতায় নিয়ে আসতে ২০১৪ সালের ২০ এপ্রিল থেকে খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল এর ৩য় ইশকুল হিসেবে নিজেদের কার্যক্রম শুরু করে মজার ইশকুলঃ সদরঘাট।

প্রতি সপ্তাহের শনিবারে রাজধানীর সদরঘাটের ১নং লঞ্চ টার্মিনালের ২য় তলায় বিকেল ৩.০০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬.০০ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় মজার ইশকুলঃ সদরঘাট।নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রমের পাশাপাশি বছরে ৬টি উৎসব করে মজার ইশকুলঃ সদরঘাট।যেই উৎসব গুলো মজার ইশকুলের অন্যান্য পয়েন্টেও সার্বিক ভাবে অনুষ্ঠিত হয়।এছাড়াও বছরের বিভিন্ন সময়ে জন্মদিনের ইভেন্ট, জাতীয় দিবস উদযাপনের মাধ্যমে শিশুদের যুক্ত রাখার চেষ্টা করা হয় মূলধারায়।০৮-১০ জনের মাধ্যমে পরিচালিত ইশকুলের নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রমে গড় শিশু উপস্থিতি থাকে ৪০-৫০ জন।স্বেচ্ছাসেবী টিমকে লিড করার জন্য থাকে একজন কোওর্ডিনেটর এবং পয়েন্টের যাবতীয় সমস্যা এবং পরামর্শ প্রদানের জন্য রয়েছে একজন মেন্টর।

বর্তমান কোওর্ডিনেটর -
মাহমুদা ভুঁইয়া
সেশন-০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

বর্তমান মেন্টর-
মোঃ আবুল কাশেম সুজন
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

মজার ইশকুলের শুরুর গল্প mojar school মজার স্কুল

মজার ইশকুলঃ শাহবাগ
পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলো মজার ইশকুল সেই যাত্রার শুরুটা হয়েছিলো মজার ইশকুলঃ শাহবাগ নাম দিয়ে।২০১৩ সালের ১০ জানুয়ারী।শীতের এক বিকেলে রাজধানী ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের লালন চর্চা কেন্দ্রে ১৩ জন শিশুর উপস্থিতিতে শুরু হয় মজার ইশকুলঃ শাহবাগের ক্লাস। 

 
প্রথম দিকে সপ্তাহের দিন গুলোর একদিন পর একদিন ক্লাস অনুষ্ঠিত হলেও পরবর্তীতে সপ্তাহে একদিন (প্রতি সোমবার) বিকেল ৩.০০- ৬.০০ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় মজার ইশকুলঃ শাহবাগ এর ক্লাস।  উদ্যানের খোলা আকাশের নিচে, রমনা কালি মন্দিরের কাছে বাংলা একাডেমির বিপরীতে কার্যক্রম শুরু হলেও অতিরিক্ত শীত ও বর্ষার হাত থেকে রক্ষা পেতে ছবির হাটের নিকটে টিএসসির বিপরীতে "লালন চর্চা কেন্দ্র" নামক ছুওনির নিচে কার্যক্রম স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই দীর্ঘ ০৭ বছরের বেশি সময় ধরে পরিচালিত হচ্ছে  মজার ইশকুলঃ শাহবাগ এর নিয়মিত কার্যক্রম।
  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আশেপাশে ঘুরে বেড়ানো, কামরাংগীর চর, নিউ মার্কেট, নীলক্ষেত, হাইকোর্ট, পলাশীর সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের মূলত স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্যই বর্তমানে পরিচালিত হচ্ছে মজার ইশকুলঃ শাহবাগ।নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রমের পাশাপাশি বছরে ০৬টি উৎসবে যুক্ত থাকে মজার ইশকুলঃ শাহবাগ।ক্রীড়া উৎসব, পিঠা উৎসব, ঈদ উৎসব, ফল উৎসব, আনন্দ উৎসব সবশেষে শীত উৎসব আয়োজনের মাধ্যমে শিশুদের সুন্দর এবং স্মরনীয় একটি দিন উপহারের চেষ্টা করা হয়ে থাকে।

৮-১০ জন স্বেচ্ছাসেবীর মাধ্যমে প্রতিটি ক্লাসে গড়ে ৩০-৪০ জন শিশুর উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হয় মজার ইশকুলঃ শাহবাগ এর ক্লাস।স্বেচ্ছাসেবী টিমকে লিড করার জন্য থাকে একজন কোওর্ডিনেটর এবং পয়েন্টের যাবতীয় সমস্যা সমাধান এবং পরামর্শ প্রদানের জন্য রয়েছে একজন মেন্টর।

বর্তমান কোওর্ডিনেটর-
মোঃ রাজিব হোসেন।
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

বর্তমান মেন্টর-
তাসফিয়া তামকিন রেজা।
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)
#মজার_ইশকুল #মজার_স্কুল #Mojar_School #MojarSchoolForStreetChildren #child_sponsorship_organizations #sponsor_child_education #sponsor_a_child_in_need #sponsor_an_orphan #Mojar_School_Sponsor_a_Child #Under_Priviliged_Children_Dhaka_Bangladesh #সুবিধাবঞ্চিত_শিশুদের_জন্য_মজার_ইশকুল
মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি
কামরাঙ্গীরচর ও রায়ের বাজার এর সকল পথশিশুর মিলন স্থান হল ধানমন্ডির বরীন্দ্র সরোবর। এখানে দর্শনার্থীদের সংখ্যা বেশি হওয়ার শিশুরা সহজেই তাদের কাছ থেকে খাবার চেয়ে খেতে পারে বা ভিক্ষা করতে পারে। এ সকল শিশুরা কেউ কেউ ধানমন্ডি লেকে লাফালাফি করছে, আবার কেউ কেউ ভিক্ষা করছে, কেউ ফুল বিক্রি, কেউবা আবার কোন কিছু চুরি করতে চাচ্ছে। মূলত ধানমন্ডি লেকে এদের আনাগোনাই খুব বেশি। তারা শুধু পায় না  ভালোবাসা ও পড়াশোনার সুযোগ।
মজার ইশকুল চার বছরের ডাটাবেজ যাচাই বাছাই করার পরে ২০১৮ সালের ১ মে রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবরে যাত্রা শুরু করে মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি।রায়ের বাজার, ওসমানী উদ্যান, রবীন্দ্র সরোবর, ধানমন্ডি ৩২, কলাবাগান, জিগাতলার শিশুদের কেন্দ্র করে যাত্রা শুরু করা মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি-র ক্লাস অনুষ্ঠিত হয় প্রতি মঙ্গলবার বিকেল ৩.০০ টা থেকে ৬.০০ টা।প্রতি ক্লাসে গড় শিশু উপস্থিতি ৪০-৫০ জন।৮-১০ জন স্বেচ্ছাসেবী টিমকে লিড করার জন্য রয়েছেন একজন কোওর্ডিনেটর এবং পয়েন্টের যাবতীয় সমস্যা সমাধান এবং কোওর্ডিনেটরকে পরামর্শ প্রদানের জন্য রয়েছেন একজন মেন্টর। নিয়মিত ক্লাস কার্যক্রমের পাশাপাশি বছরে ৬টি উৎসব করে মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি ।যেই উৎসব গুলো মজার ইশকুলের অন্যান্য পয়েন্টেও সার্বিক ভাবে অনুষ্ঠিত হয়।এছাড়াও বছরের বিভিন্ন সময়ে জন্মদিনের ইভেন্ট, জাতীয় দিবস উদযাপনের মাধ্যমে শিশুদের যুক্ত রাখার চেষ্টা করা হয় মূলধারায়।  

বর্তমান কোওর্ডিনেটর
কামরুন নাহার ইতি।
সেশন-০১/ ২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

বর্তমান মেন্টর-
আশিকুর রহমান
সেশন- ০১/২০২০ (জানুয়ারি- এপ্রিল)

সপ্তাহে শনি, সোম,মঙ্গল বা বৃহস্পতিবার যে কোন একদিন যদি বিকাল ৩ টা থেকে ৬ টা পর্যন্ত ফ্রি থাকেন, তাহলে খুব সহজেই নিয়মিত #স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত হতে পারেন মজার ইশকুল এর সাথে । সপ্তাহে একদিন খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল- পথশিশুদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে এইটা ছোট প্রয়াস মাত্র। মজার ইশকুল- এর নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবীরা পথশিশুদের কাছে একটি বিশাল আস্থার জায়গা। পথশিশুদের বন্ধু হওয়ায় জন্য রেসজিট্রেশন করুন নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে।

#Be_Hero’s For Street Child and Apply Online for Regular Volunteer:
http://bit.ly/MojarSchoolVolunteer

স্বেচ্ছাসেবী নিবন্ধনের জন্য চলে আসতে পারেন সরাসরি আমাদের অফিসে।
গুগল ম্যাপে আমাদের অফিস - - https://goo.gl/maps/vwAGppxfDPo

প্রতি শনিবার - মজার ইশকুলঃ সদরঘাট
প্রতি সোমবার - মজার ইশকুলঃ শাহবাগ
প্রতি মঙ্গলবার - মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি
প্রতি বৃহস্পতিবার - মজার ইশকুলঃ কমলাপুর

নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল- এর অন্যতম উদ্যোগ হলো Volunteer Fellowship যার মাধ্যমে একজন স্বেচ্ছাসেবী মজার ইশকুল- এর সাথে নিয়মিতভাবে ২ বছর স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করার সুযোগ পাবে। যেখানে একজন স্বেচ্ছাসেবী ১ বছর নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী বা পয়েন্ট সমন্বয়কারী হিসেবে কাজ করবে এবং দ্বিতীয় বছর পয়েন্ট সমন্বয়কারী বা মেন্টর হিসেবে ৮ মাস কাজ করবে এবং বাকি ৪ মাস অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন- এর যেকোনো প্রশাসনিক বিভাবের অধিনে ইন্টার্নশীপ করবে। যার মাধ্যমে একজন স্বেচ্ছাসেবী বাস্তব কাজ করার অভিজ্ঞতা অর্জন করবে যা তাকে পরবর্তিকে কর্মক্ষেত্রে সহায়তা করবে।

নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত হওয়া ছাড়াও উৎসব/ ইভেন্ট স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে মজার ইশকুল- এর সাথে যুক্ত হওয়ার সুযোগ রয়েছে। মজার ইশকুল পথশিশুদের জন্য ৬ টি উৎসবের আয়োজন করে থাকে। আর এ ৬ টি উৎসব এ উৎসব স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত হওয়ার সুযোগ থাকে।
উৎসব/ ইভেন্ট স্বেচ্ছাসেবীদের ক্ষেত্রে উৎসবকে কেন্দ্র করে ৩ টি দিন যুক্ত থাকা আবশ্যক।স্বেচ্ছাসেবী ওরিয়েন্টেশন, উৎসব এবং উৎসব রিভিউ প্রোগ্রাম- এই ৩ দিন একজন উৎসব/ ইভেন্ট স্বেচ্ছাসেবীকে অবশ্যই উপস্থিত থাকতে হয়। উল্লেখ্য যে উৎসব স্বেচ্ছাসেবীগণ চাইলে নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী হিসেবেও যুক্ত হতে পারে।

ভার্চুয়ার স্বেচ্ছাসেবী
V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) একটি ফান্ড রাইজিং পদ্ধতি যার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি পথশিশুদের জন্য সরাসরি কাজ করার সুযোগ না পেলেও অর্থ সহায়তা দানের মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে পথশিশুদের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারে। V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হতে মাসিক ভিত্তিতে প্রাপ্ত অর্থ খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ইশকুল- এর শিশুদের খাদ্য নিশ্চিত করণ, মানসম্মত রাত্রিযাপন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নাইট শেল্টার এবং অধীক সংখ্যক পথশিশুর কাছে পৌছানোর লক্ষ্যে ডিজিটাল মজার ইশকুল ( Digital Bus School ) তৈরিতে ব্যয় হবে।
পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে মজার ইশকুল কাজ করে চলেছে কিন্তু তা কখনই একার পক্ষে সম্ভব নয়।

পথশিশুরা বঞ্চিত সকল ধরণের মৌলিক চাহিদা থেকে। তাদের এসকল মৌলিক চাহিদাগুলো পূরণ করার জন্য প্রয়োজন বাধাহীন সহযোগীতা যা একজন V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হোল্ডার বা ভার্চুয়াল স্বেচ্ছাসেবী করে থাকেন। প্রতি মাসে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ সহায়তার মাধ্যমে পথশিশুদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের মাধ্যমে পথশিশুদের পাশে থাকার সুযোগ তৈরি হয় একজন ভার্চুয়াল স্বেচ্ছাসেবীর।

#Be a V2 Card Holder, Be a Change maker
http://bit.ly/streetchildfriend

গুগল ম্যাপে আমাদের অফিস - - https://goo.gl/maps/vwAGppxfDPo

 অবশ্যই ,

 

নানান সফট স্কিল বিশেষ করে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সসেল ও পাওয়ার পয়েন্টে দক্ষতা অর্জন করা যায়, কাজের মাধ্যমে । 

 

৮ বিভাগের প্রায় ৩,৫০০ নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী একই উদ্দেশ্যে একই  স্থানে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করায়, যোগাযোগের মাধ্যমে নেটওয়ার্কিং বাড়ে, যোগাযোগ দক্ষতা বাড়ে, ইমেইলের মত প্রোফেশনাল বিষয় গুলো দ্রুত আয়ত্ব করা যায়। 

 

লিডার শীপের অন্যতম মূল মন্ত্র, ফান্ড - ম্যান - ম্যানেজমেন্টের মত জটিল বিষয় কাজের মাধ্যমে শেখার সুযোগ। 

ফলাফল দারুণ, ৭০০ পথশিশুকে সরাসরি ইশকুলে ভর্তি ও বিনামূল্যে পড়ানোর মত কঠিন ও অসম্ভব কাজটি স্বেচ্ছাসেবীরাই করেছে, বিগত ৭ বছরের বেশী সময় ধরে । এখনো ২০২০ সালে ১৩,০০ এর বেশী শিক্ষার্থীকে বন্ধু বানিয়েছে এই স্বেচ্ছাসেবীরা 

Volunteer of the Year কিঃ
খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত মজার ইশকুল- এর যেসকল স্বেচ্ছাসেবী পুরো বছর নিয়মিত স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে যুক্ত থাকেন তাদের মধ্যে থেকে কজন বছর সেরা স্বেচ্ছাসেবী নির্বাচন করা হয়। অর্থাৎ স্বেচ্ছাসেবীদেরকে বছরের ৩ টি সেশন এ স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করতে হয় এবং তার সাথে সাথে সেরা নির্বাচিত হওয়ার মানদন্ডগুলো পূরণ করতে হয়।
খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ৪ টি ইশকুল- এ মাসিক ও সেশন সেরা স্বেচ্ছাসেবী পয়েন্ট ভিত্তিকভাবে নির্বাচন করা হলেও সকল স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে থেকে একজন বছর সেরা স্বেচ্ছাসেবী নির্বাচন করা হয়।

২০১৬ সালে বছর সেরা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে নির্বাচিত হন মুশাররাত শবনম, ২০১৭ সালে বছর সেরা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে নির্বাচিত হন ফারজানা আক্তার এবং ২০১৮ সালে বছর সেরা স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে নির্বাচিত হন মুনিরা মাহজাবিন মিমো।

ভার্চুয়াল ভলান্টিয়ার হবো কিভাবে?

ভার্চুয়াল ভলান্টিয়ার হবো কিভাবে?

V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) একটি ফান্ড রাইজিং পদ্ধতি যার মাধ্যমে একজন ব্যক্তি পথশিশুদের জন্য সরাসরি কাজ করার সুযোগ না পেলেও অর্থ সহায়তা দানের মাধ্যমে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে পথশিশুদের উন্নয়নে অবদান রাখতে পারে। V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হতে মাসিক ভিত্তিতে প্রাপ্ত অর্থ খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ইশকুল- এর শিশুদের খাদ্য নিশ্চিত করণ, মানসম্মত রাত্রিযাপন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নাইট শেল্টার এবং অধীক সংখ্যক পথশিশুর কাছে পৌছানোর লক্ষ্যে ডিজিটাল বাস ইশকুল ( Digital Bus School ) তৈরিতে ব্যয় হবে।

কিভাবে প্রাপ্ত অর্থ ব্যয় হচ্ছে এবং হবে তার একটা ধারণা এই লেখায় আমরা দেয়ার চেষ্টা করছি, পথশিশুদের জন্য মানসম্মত রাত্রিযাপন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নাইট শেল্টার তৈরির উদ্যোগ গ্রহণের জন্য আমাদের প্রয়োজন ১০০০ জন V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হোল্ডার, যেখানে আমাদের বর্তমান অগ্রগতি ০.০৬১%। অধীক সংখ্যক পথশিশুর নিকট খাদ্য, শিক্ষা এবং প্রযুক্তি পৌছানোর জন্য আমাদের পরিকল্পনা রয়েছে ডিজিটাল বাস ইশকুল ( Digital Bus School ) তৈরির, যার জন্য আমাদের প্রয়োজন ৫০০ জন V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হোল্ডার। যেখানে আমরা বর্তমানে ১.২২% সফল হয়েছি। এছাড়াও আমাদের ৪ টি খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ইশকুল (মজার ইশকুলঃ শাহবাগ, মজার ইশকুলঃ কমলাপুর, মজার ইশকুলঃ সদরঘাট এবং মজার ইশকুলঃ ধানমন্ডি)- এ আসা পথশিশুদের স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্য নিশ্চিত করা হয় V2 Card ( Virtual Volunteer Card ) হতে প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে। রাস্তায় বেড়ে ওঠা শিশুদের সুন্দর এবং সুস্থ জীবন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে খাদ্য, শিক্ষা, প্রযুক্তি এবং বাসস্থান নিশ্চিত করা খুবই জরুরি।
আগ্রহী হলে, বিস্তারিত পড়ুন
Image

Now Your Turn, Make Difference

আগামী ৩ ( তিন ) বছরের পরিকল্পনা কি ?

আগামী ৩ ( তিন ) বছরের পরিকল্পনা কি ?

আগামী ৩ বছর ( ২০২০-২০২২ ) সাল ছাড়াও আগামী ২০৩৩ সাল পর্যন্ত আমরা ১ টি নির্দিষ্ট লক্ষ্যে কাজ করবো আর তা হচ্ছে প্রতিটা সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুর কাছে পৌঁছানো এবং পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কাজ চলবে ।

তবুও আগামী ৩ বছরে আমরা খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ইশকুলের টিম শাহবাগ, সদরঘাট, কমলাপুর ও ধানমণ্ডি ছাড়াও অন্তত আরও ৬ টি পয়েন্টে কার্যক্রম শুরু করতে চাই।

ডিজিটাল বাস ইশকুলের কার্জক্রম শুরু করতে চাই ।
সেইফ নাইট শেল্টারের কার্যক্রম শুরু করতে চাই ।
৮ বছরের ( ২০১৩ - ২০২০ ) অর্জন কি ?

৮ বছরের ( ২০১৩ - ২০২০ ) অর্জন কি ?

এই Under The Sky :: Mojar School - মজার ইশকুল সফল ভাবে ৭০০ ( সাত শত ) শিক্ষার্থীকে ন্যাশনাল কারিকুলাম বেইজ ইশকুলের অর্থাৎ প্রাইমারি ইশকুলে পড়ার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। যা অনবদ্য এক সাফল্য ।

৪ জন বছর সেরা দুর্দান্ত স্বেচ্ছাসেবীকে খুঁজে বের করেছে, যারা নেতৃত্ব দিচ্ছে, ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে দিবে । ২০২০ সালে ৩,৫০০ ( তিন হাজার পাঁচ শত )নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী দেশের জন্য কাজ করার মানে খুঁজে পেয়েছে।

এই অর্জন গুলোই আমাদের কাজ ব্যাপক।
ছবি গ্যালারি

ছবি গ্যালারি

Image
Image
Image
Image
Image
Image
Image
Image
ভিডিও গ্যালারি

ভিডিও গ্যালারি

[ ই-বুক ]  অদম্য - Odommo

[ ই-বুক ] অদম্য - Odommo

Image
অদম্য - Odommo Magazine l October 2019 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l November 2019 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l December 2019 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l January 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l February 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l March 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l April 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l May 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l June 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l July 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল
Image
অদম্য - Odommo Magazine l August 2020 l Mojar School - মজার ইশকুল