Sponsor a Child

Student wise sponsor

Option


Mojar School - Sponsor A Child Today

ন্যাশনাল কারিকুলাম অনুসারে অভিজ্ঞ প্রশিক্ষকের নিকট হতে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শিক্ষক কর্তৃক পরিচালিত মজার ইশকুল স্থায়ী ইশকুল-এর সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থী মজার ইশকুলঃ স্পন্সর এ চাইল্ড প্রোগ্রামের আওতাধীন।

হাত বাড়িয়ে দিন এই আলোকিত পথের সহযাত্রী হতে মাসিক মাত্র ১৫০০ টাকায় - "শিক্ষা উন্নয়ন অভিভাবক বা Sponsor A Child"এর জন্য Sponsor A Child Form পূরণ করে আপনার প্রাথমিক তথ্য দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন, ২৪ ঘণ্টার ভিতর আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করবো ।

Mojar School’s permanent school is running according to National Curriculum by experienced and trained teacher. The underprivileged students of Mojar School’s permanent school are under Sponsor A Child program.

You can join us by supporting at least one of our student's monthly education cost of BDT 1500 through our sponsor a child program. To become a "SPONSOR A CHILD", Please fill our "SPONSOR A CHILD" form. We will contact you within 24 hours.

Latest Update

850
Total Students
Boys 38.59%
Girls 61.41%

Mojar School - Sponsor A Child Impact

জেসমিনের শতবাধা অতিক্রম করে পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়ার গল্প

আগারগাও এর বস্তিতে থাকা জেসমিন, মা বাবার সাথে অস্বাস্থ্যকর ঘিঞ্জি এক রুমে থাকে । অসচ্ছল পরিবারে বাবা লেগুনা অথবা রিক্সাচালক, বা লেবারির কাজ করে থাকে । আর মা রোজ সকালে চলে যায় অন্যের সংসারের বাসার কাজ করতে।

তাকে নিজে থেকে ঘুম থেকে উঠতে হয়। বস্তিতে থাকা ছোট্ট ঘরটি ঘুছাতে হয়। রাতে ফেলে রাখা সব থালা- বাসন ধুয়ে রাখতে হয়, রান্নার জন্য তরকারি কুটে রাখা আবার সেগুলো রান্না করে রাখা। পাশাপাশি ৪বছরের ছোট বোনের দেখাশুনা করা। রান্না করতে গিয়ে প্রায় হাত পুড়ে যেত না হলে কেটে যেত। হাতের আঙ্গুলে বয়সের থেকে কাটার দাগ বেশি । সব কাজ শেষে যদি খেলার সুযোগটা হয়ে উঠে তাহলে খেলতে যাওয়া হয়।

প্রায় সময় কাজের তালে ভুলেই যেত ইশকুলে আসার কথা। জেসমিনকে মজার ইশকুল ধরে ধরে স্কুলে আসার আগ্রহ গড়ে তুলেছে। ইশকুলে এসে নিজের শৈশবের আনন্দ পাওয়ার সুযোগ কিছুটা পেয়েছে কিন্তু তার কাজের তালিকা এখনো আগের মতোই রয়েছে। সব কিছু ঠিক রেখে সে ইশকুলে নিয়মিত আসছে, প্রতিটাদিন পড়াশুনায় ভালো করছে। নিজেকে সবার মতো করে পরিস্কার করে রাখতে শিখছে। মজার ইশকুল আছে বলে জেসমিনের মতো অনেক বাচ্চারাই আজ ইশকুলে পড়ার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে না। দিন যত যাচ্ছে তার পরিবর্তনে মুগ্ধতা বাড়ছে শত বাধার পরেও নিজেকে এগিয়ে নিতে যাচ্ছে। শৈশবের সেরা সময়গুলো কাটানোর সুযোগ খুজে পাচ্ছে।

Read in English

Jasmine's story of overcoming hundreds of obstacles to continue her studies

Jasmine, who lives in Agargaon slum. She lives in an unhealthy crowded room with her parents. In indigent families, her father works as a laguna or rickshaw puller, or a laborer. And her mother goes to work in someone else's house every morning. She has to wake up on her own. She has cleaned the small house in the slum. All the dishes left at night have to be washed, the curry has to be chopped for cooking and then they have to be cooked. As well as taking care of a 4-year-old younger sister. Sometimes she would burn her hands while cooking or cut them. There are more cut marks on the fingers than age. After all the work has done then she got the opportunity to play.

Many times in the rhythm of work, she almost forgot to come to school. Mojar School has developed an interest in Jasmine for coming to school. She has got a chance to enjoy her childhood in school but her worklist is still the same. Keeping everything in order, she is coming to school regularly, doing well in her studies every day. Learning to keep yourself clean like everyone else. Many children like Jasmine are not deprived of the joy of going to school today because of Mojar School. As the days go by, the fascination is increasing. And she is taking herself forward even after hundreds of obstacles. Finding opportunities to spend the best time of childhood.

বাল্যবিবাহের হাত থেকে লামিয়ার রক্ষা পেতে মজার ইশকুল এর চেষ্টার গল্প

বয়ঃসন্ধিকাল প্রতিটি কিশোর-কিশোরীর জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা সময়। এই সময়ে তার প্রয়োজন যথাযথ যত্ন ও কাউন্সিলিং এর। লামিয়াও এর ব্যতিক্রম নয়। কিন্তু লামিয়া বেড়ে উঠেছে আগারগাঁও কুমিল্লা বস্তির অসচেতন ও শিক্ষাহীন মানুষের মধ্যে ওখানে মেয়েদের ১২ বছর পার হলেই বিয়ে দিয়ে দেওয়ার একটা প্রবণতা দেখা যায় শিশুর মা-বাবা সহ আশেপাশের সকলের। তেমনটিই হয়েছে লামিয়ার ক্ষেত্রে বয়ঃসন্ধিকাল স্বাভাবিক পরিবর্তনগুলো যেনো অস্বাভাবিক লাগতে শুরু করেছিল তা বাবা-মায়ের। আর এর সমাধান হিসেবে লামিয়ার বিয়ে দেওয়ার পথটাই সমাধান মনে হয়েছে তার পরিবারের। এমন কি ফেব্রুয়ারি ২০২০ মাসে তাকে বিয়ের জন্য গ্রামে পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়ে গিয়েছিলো গোপনে।

লামিয়া ২০১৪ সাল থেকে মজার ইশকুল এর শিক্ষার্থী এমন কিছু ঘটলে বছর ধরে লামিয়ার পড়াশোনা, মজার ইশকুলের এ প্রচেষ্টা সবই তাহলে বৃথা চলে যাবে। তাই তার কাছে সকল বিষয় জানার পর ১ সপ্তাহের মধ্যে ৩ বার সিনিয়র শিক্ষক বাসা ভিজিটে যান। ১০ এর অধিকবার ফোন কলে লামিয়ার পরিবারের সাথে যোগাযোগের করা হয়। শিক্ষকগণ ফোনে এবং বাসা ভিজিট থেকে তথ্য সংগ্রহ করার পর ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখ প্রোগ্রাম ম্যানেজার (এডুকেশন) লামিয়ার পরিবারের সাথে সরাসরি প্রায় ২ ঘণ্টার অধিক সময় ধরে কথা বলেন। বয়ঃসন্ধিকালের পরিবর্তন ও এ সময় করণীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা করা এবং ১৮ বছরের আগে লামিয়ের বিয়ে দেওয়ার কুফল নিয়ে আলোচনা করেন। যেহেতু লামিয়ার মাও বাল্যবিবাহের শিকার তাই তিনি পুরিপুরিভাবে বিষয়টি বুঝতে সক্ষম হয়েছে এবং ইশকুলের উপর ভরসা রেখে ১৮ বছরের আগ পর্যন্ত মেয়েকে পড়ালেখা করাতে চায়।

মজার ইশকুল এর প্রতিটি শিক্ষার্থীর রয়েছে পড়ালেখার স্বপ্ন পূরণের জন্য সামনে এগিয়ে যাওয়ার গল্প। তাদের এই স্বপ্ন পূরণের পাশাপাশি খাদ্য, চিকিৎসার মত মৌলিক চাহিদা পূরণ এবং বিভিন্ন কো-কারিকুলাম কার্যক্রম নিশ্চিতে কাজ করে যাচ্ছে মজার ইশকুল। একই সাথে সারা বছর জুড়ে চলমান রয়েছে নানা কো-কারিকুলাম কার্যক্রমে অংশগ্রহণ নিশ্চিতের নানা উদ্যোগ।

মজার ইশকুলঃ স্পন্সর এ চাইল্ড এর আওতায় একজন শিক্ষা উন্নয়ন অভিভাবক এর কন্ট্রিবিউশন এ সকল পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

Read in English

Mojar School's attempt to save Lamia from child marriage

Adolescence is a very important time for every teenager. At this time he/she needs proper care and counseling. Lamia is no exception. But Lamia has grown up among the uneducated and incognizance people of Agargaon Comilla slum. There is a tendency to marry girls only after the age of 12 years among them, including the parents of the child. In Lamia's case, it was her parents who began to feel uncomfortable with the normal changes of puberty. And as a solution to this, Lamia's marriage seems to be the solution for her family. Even in February 2020, an initiative was taken to send her to the village for marriage in secret.

So, will all these efforts of Lamia and Mojar School for 6 years from 2014 go in vain? After learning everything from her, the senior teacher visited the house three times a week. We contacted Lamia's family more than 10 times by phone. After collecting information over the phone and from home visits, the program manager (education) spoke directly with Lamia's family for more than two hours on February 24, 2020. He discusses the changes in puberty and what to do at this time and the harmful effects of marrying Lamia before the age of 18. Since Lamia's mother is a victim of child marriage, she has been able to fully understand the issue and rely on the school to educate her daughter until the age of 18.

Every student of Mojar School has a story of moving forward to fulfill the dream of studying. In addition to fulfilling their dreams, Mojar School is working to ensure the basic needs like food, medical care, and various co-curricular activities. At the same time, various initiatives are underway throughout the year to ensure participation in various co-curricular activities. The contribution of an education development parent under Mojar School: Sponsor A Child is playing the most important role in the implementation of all these plans.

Testimonials From Sponsor Guardian

Frequently Asked Questions



Mojar School is a non-profitable organization working for the Street Children and conducted by the youth since January 10, 2013.
Street Child free Bangladesh.
www.odommobangladesh.org.bd/donate by clicking on this page you will get donation details.
Why not? Of course, you can. You are just requested to fill up this form http://bit.ly/VisitMojarSchool We will call you.
Yes, of course. You need to inform us through mojarschool@gmail.com this mail and need to mention the period of time.
Yes, we are registered under the Register of Joint-stock companies & Firm and the registration number is S-12055.
We maintain our account through expert accountants and do audit every year. Our Audit papers are public, you can see them by visiting our office.